বিজেপি নেতাদের আতঙ্ক, হেলমেট পরে সাক্ষাৎকার নিচ্ছেন সাংবাদিকরা

bangla bangla news Bengali news National
সাংবাদিকদের নিরাপত্তা নিয়ে কাগজে কলমে কম লেখালেখি হয় না। নেতা-মন্ত্রীরা সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা এবং নিরপেক্ষতা নিয়ে মুখে বড় বড় কথাও বলেন। কিন্তু বাস্তবে দেখা যাচ্ছে এই নেতা-মন্ত্রীদের হাতেই আক্রান্ত হতে হচ্ছে সাংবাদিকদের। এমনই এক ঘটনা ঘটেছে ছত্তিশগড়ে। এক সংবাদমাধ্যমের কর্মীকে বেধড়ক মারধর করেছেন বিজেপির জেলা সভাপতি-সহ চার কর্মী। এরই প্রতিবাদে হেলমেট পরে বিজেপি নেতাদের সাক্ষাৎকার নিচ্ছেন রায়পুরের সাংবাদিকরা।

বিজেপি নেতাদের আতঙ্ক, হেলমেট পরে সাক্ষাৎকার নিচ্ছেন সাংবাদিকরা

মূল ঘটনা গত শনিবারের। বিজেপির রায়পুরের জেলা সভাপতি রাজীব আগরওয়ালের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে সুমন পাণ্ডে নামের এক সাংবাদিকের উপর সদলবলে হামলা চালানোর। শনিবার বিজেপি দপ্তরে একটি বৈঠক ছিল। মূলত বিজেপির সম্প্রতি বিধানসভা নির্বাচনে হারের কারণ নিয়ে আলোচনা হওয়ার কথা ছিল ওই বৈঠকে। অন্য সাংবাদিকদের সঙ্গে সুমন পাণ্ডেও হাজির ছিলেন বিজেপি দপ্তরে। সূত্রের খবর, বৈঠক চলাকালীন নিজেদের মধ্য বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন ছত্তিশগড়ের বিজেপি নেতারা। সেসময় নিজের মোবাইল বের করে সেই দৃশ্য রেকর্ড করছিলেন সাংবাদিক। বিজেপি নেতারা সেটা দেখতে পেয়ে, ওই সাংবাদিককে ভিডিও রেকর্ডিং বন্ধ করতে বলেন। এরপর তাঁর ফোন কেড়ে নিয়ে তা ডিলিট করে দেওয়ার চেষ্টা করা হয়। এরই মধ্যে কয়েকজন তাঁর উপরে ঝাঁপিয়ে পড়ে, এবং মারধর শুরু করে। যদিও, এই ঘটনার পর ক্ষমা চেয়ে নিয়েছেন রাজ্যের নেতারা। তাদের সাফাই, বৈঠকের গোপন ছবি তোলার অধিকার সাংবাদিকের নেই, কিন্তু তিনি সেকাজই করছিলেন। তাই কর্মীরা রেগে গিয়েছিল। তা সত্ত্বেও সুমনের কাছে হাত জোড় করে ক্ষমা চেয়ে নেওয়া হয়েছে।

কিন্তু এতেও ক্ষোভ মেটেনি রায়পুরের সাংবাদিক মহলের। তাঁরা রাজীব আগরওয়াল নামে মূল অভিযুক্ত ওই ব্যক্তির বহিষ্কারের দাবিতে সরব হয়েছেন। এবং সেই সঙ্গে সাংবাদিকদের নিরাপত্তা নিয়ে নতুন আইন আনার দাবিতে অভিনব প্রতিবাদ শুরু করেছেন। রায়পুরে বিজেপি নেতাদের অনুষ্ঠানে এখন অধিকাংশ সাংবাদিকই যাচ্ছেন হেলমেট পরে। তাদের দাবি, নিজেদের নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখেই এই পদক্ষেপ। ছত্তিশগড়ের মুখ্যমন্ত্রী ভুপেশ বাঘেল দোষীদের শাস্তি দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন। সেই সঙ্গে সাংবাদিকদের নিরাপত্তা সংক্রান্ত আইন আনার ব্যপারটি নিয়েও পদক্ষেপ শুরু করেছেন বলে জানা গিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *