কম লক্ষ্মণযুক্ত রোগীরা সুস্থ হলে বাড়ি যাওয়ার আগে টেস্টের প্রয়োজন নেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রক

কম লক্ষ্মণযুক্ত রোগীরা সুস্থ হলে বাড়ি যাওয়ার আগে টেস্টের প্রয়োজন নেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রক

National


নিজস্ব প্রতিবেদন : চিকিৎসার পর সেভাবে রোগের লক্ষ্মণ না থাকলে টেস্ট না করেই বাড়ি যেতে পারবেন করোনা রোগীরা। শনিবার এমনটাই জানাল কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের ঘোষণায় বলা হয়েছে, “চিকিৎসার পর সেভাবে রোগের লক্ষ্মণ নেই (Mild) এবং টানা ৩ দিন জ্বর হয়নি এমন ব্যক্তিদের ছাড়ার সময় আর‌ও একবার টেস্ট করার প্রয়োজন নেই।”

এক্ষেত্রে কিছু বিধি মানতে হবে বলে জানিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক। পরপর ৩ দিন টানা জ্বর হয়নি, এবং শ্বাসকষ্টের জন্য অক্সিজেন দিতে হয়নি এমন রোগীদের ক্ষেত্রে এটি প্রযোজ্য। টানা ১০ দিন নামমাত্র সিমটম থাকলে সে ক্ষেত্রে সেই ব্যক্তিকে পর্যবেক্ষণের পর বিনা টেস্টেই বাড়ি যেতে দেওয়া যেতে পারে। তবে বাড়ি গেলেও অবশ্যই সেই ব্যক্তিকে থাকতে হবে এক সপ্তাহের হোম কোয়ারেন্টিন। সেই সময় নজর রাখা হবে তাঁর উপর।

এদিন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের গাইডলাইনে বলা হয়েছে, চিকিৎসা চলাকালীন কোনও অল্প লক্ষ্মণযুক্ত ব্যক্তির দেহে অক্সিজেনের মাত্রা ৯৫ শতাংশের নীচে কমে গেলেই দ্রুত ব্যবস্থা নিতে হবে। এমন পরিস্থিতিতে কোন‌ও ঝুঁকি নিতে রাজি নয় কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক। কোভিড-১৯ হাসপাতালে পাঠিয়ে চিকিৎসা করতে হবে এমন রোগীদের। রোগী সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে যাওয়ার পরেও তাঁকে থাকতে হবে কড়া হোম কোয়ারেন্টিনে। স্বাস্থ্যের অবনতি হলেই সঙ্গে সঙ্গে স্টেট হেলপ্লাইন নম্বরে বা ১০৭৫ ডায়াল করতে হবে। নিতে হবে চিকিৎসকদের পরামর্শ।

উল্লেখ্য, এখন‌ও পর্যন্ত ভারতে মোট করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ৬০ হাজার। সেখানে “৮০ শতাংশ ক্ষেত্রেই করোনা আক্রান্তদের কোন‌ও রোগের লক্ষ্মণ আগে থেকে দেখা যাচ্ছে না। এটাই এখন সবথেকে বড় চিন্তার বিষয়,” এমটাই বললেন ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিকেল রিসার্চের গবেষক আর গঙ্গাখেদকর। ‘কন্টাক্ট-ট্রেসিং’ অর্থাৎ একজন আক্রান্ত ব্যক্তি যাঁদের সংস্পর্শে এসেছিলেন তাঁদের খুঁজে বের করা ছাড়া কোনও উপায় নেই,এমনটাই মত গবেষকের। 

প্রসঙ্গত, আগে কোনও আক্রান্ত ব্যক্তি হাসপাতাল ছাড়ার আগে অন্তত ২ বার তাঁর পরীক্ষা করা হত। RT-PCR পদ্ধতিতে টেস্ট করা হত। তাতে পরপর ২ বার নেগেটিভ রেজাল্ট আসলে তবেই বাড়ি যাওয়ার অনুমতি মিলত। এখন কম লক্ষ্মণ যুক্ত রোগীদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে না এই নিয়ম। 

আরও পড়ুন, লকডাউনে আটকে পড়েছেন? রাজ্য সরকারের তরফে চালু হল এক্সিট ও এন্ট্রি ই-পাস





Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *